“কীর্তনখোলা নদীর প্রতি ভালোবাসা”-লুৎফুন নাহার তিথি

0
747
www.natorekantho.com

লুৎফুন নাহার তিথি : অনেক দিন আগের কথা..!! তখন আমি এসএসসিতে পড়ি। স্কুল ছেড়ে কলেজে এলাম, আগের বন্ধুরা তো রইলই.. কলেজে এসেও কিছু নতুন বন্ধু পেলাম। তাদেরই একজন হলো রুনা। চমৎকার গান গাইতো সে। ওর গানের মাধ্যমেই ‘কীর্তনখোলা’ নদীর সাথে আমার পরিচয় হয়। জানি না..ওর গানের দরাজ গলা…নাকি চমৎকার কাব্যিক নামের জন্যই.. মনে মনে আমি ভালোবেসে ফেলেছিলাম তখন না দেখা সেই নদীটিকে।

গানটির কথাগুলো ছিল-
“কীর্তনখোলা, নদী রে আমার..
এই নদীতে সাঁতার কাইটা বড় হইসি আমি..
এই নদীতে আমার মায়ে কলসিতে নিসে পানি..!!
আমার দিদিমা আইসা প্রতিদিন ভোরে
থাল-বাটি ধুইয়া গ্যাসে এই নদীর কিনারে…
আজ ১০ বছর পর বিদেশ করে ফিইরা আইসা দেহি…
হগলি বদলাইয়া গ্যাসে…
নদী আমার যেমন ছিল তেমনই আছে… ও নদী, তেমনই আছে…”

পরে অবশ্য জেনেছিলাম.. এটি বাংলা ব্যান্ডের এক জনপ্রিয় গান। জানলাম.. কীর্তনখোলা নামে সত্যি সত্যিই একটা নদী আছে। ‘কীর্তনখোলা’ বরিশাল জেলার ইতিহাস ঐতিহ্যে সমৃদ্ধ একটা নদীর নাম।

কবি মহাদেব সাহার কবিতায় তাকে আবারও খুঁজে পেলাম আমি আমার সেই ভালোলাগার নদীটিকে। কবি মহাদেব সাহাকে তো আপনারা অনেকেই চেনেন, জানেন। তিনি বাংলা কবিতায় অন্যতম এক প্রেমের কবি, চির আবেগের কবি হিসেবে খ্যাত। তিনিও অনেক আবেগে ভালোবেসে এই নদী নিয়ে কবিতা লিখেছেন- “এই যে বর্ষার নদী” কবিতায় তিনি বর্ষাকালের গ্রামের পরিবেশ ও নদীর ভরা যৌবনের কথা তুলে ধরেছেন.. সেখানেই অনেক ভালোবেসে কীর্তনখোলার বুকে জোসনার রূপের কথা বলেছেন।

‘‘দ্যাখো এই বর্ষাকাল, গাঁ-গেরামে ফুঁসে ওঠে নদী
হাঁসেরা নেমেছে জলে আমাকে বিভোর করো যদি,
কীর্তনখোলার বুকে উঠিয়াছে পূর্ণিমার চাঁদ
সেখানে পরানসখা-তুমি আমি দুজনে বিবাদ’।”

কথাটির সত্যতা দেখে এলাম এবার আমি নিজ চোখেই..!! দু’চোখ ভরে দেখেই শুধু এলাম না, ছুঁয়ে এলাম আমার সেই ভালোবাসাকে..!!

ভরা জোসনায় ‘কীর্তনখোলা’ কীযে অপরূপ রূপবতী.. তা নিজ চোখে না দেখলে বিশ্বাস হবে না..!! বিকেলের সৌন্দর্যের পাশাপাশি রাতের সৌন্দর্যও উপভোগ করলাম আমরা দল বেধে। নদীতে নৌকা চালালাম। নৌকায় করে মাঝ নদীতে রাতের বেলায় চাঁদের আলো দেখলাম..!! পাশাপাশি ক্ষণে ক্ষণে.. আকাশ আর নদীর রং বদলের খেলাটাও দেখলাম…!! এসব সৌন্দর্য হৃদয়ে ধারণ করার সুখটা যে কতটা অনন্য.. তা শুধু লেখায় প্রকাশ পাবার নয়। শুধু ফিসফিস করে বললাম, ভালোবাসি.. ভালোবাসি তোমায়…!!

Advertisement
পূর্ববর্তী নিবন্ধকবি রহমান হেনরী’র জন্মদিনে “নাটোর কণ্ঠ’ পরিবারের শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন
পরবর্তী নিবন্ধ“ট্রাফিক পুলিশের সুখ-দুঃখ” – নাসিম উদ্দীন নাসিম

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে