গুরুদাসপুরের চলনবিলে জনসমাগম ঠেকাতে পুলিশের চেকপোস্ট

0
538

গুরুদাসপুরের চলনবিলে জনসমাগম ঠেকাতে পুলিশের চেকপোস্ট

সন্দীপ কুমার, গুরুদাসপুর : নাটোরের গুরুদাসপুরে চলনবিলে প্রতিবছরে ন্যায় এবারও ঈদে বিলসায় দর্শনার্থীদের উপচে পড়া ভিড় থাকে। তবে এবছর করোনার সংক্রমণ রোধে সামাজিক দূরত্ব মেনে চলায় গুরুত্ব দেওয়া হচ্ছে। করোনা ভাইরাস থেকে মানুষকে বাঁচাতে ঈদের দিনেও অব্যাহত রয়েছে দেশ জুড়ে লকডাউন।

ঈদের দিন মানুষ ও যানবাহন নিয়ন্ত্রণের জন্য গুরুদাসপুর উপজেলার খুবজীপুর ইউনিয়নের চলনবিল বিলসায় প্রবেশপথের তিনটি গুরুত্বপূর্ণ পয়েন্টে গুরুদাসপুর থানা পুলিশের চেকপোস্ট স্থাপন করা হয়েছে। গুরুদাসপুর পৌরসভার আনন্দনগর মোড়ে একটি চেকপোস্ট। অন্য দুটি চেকপোস্ট রয়েছে খুবজীপুর বাজার ব্রীজে ও চরবিলশা এলাকায়।

খুবজীপুর এলাকায় চেকপোস্টে দায়িত্বরত গুরুদাসপুর থানার সাব ইনস্পেকটর আবু সেনা জানান, প্রতিবছর চলনবিলের সৌন্দর্য উপভোগ করতে এখানে বিভিন্ন এলাকার মানুষের সমাগম ঘটে। তবে করোনা প্রতিরোধে এ বছর জনসমাগম ঠেকাতে সবাইকে ঘরে থাকতে হবে। যার জন্য জরুরি সেবা ব্যতীত অন্য সকল যানবাহন ফেরত পাঠানো হচ্ছে। এবং সাধারণ মানুষকে বাহিরে না থাকার জন্য পরামর্শ দিয়ে তাদের ফেরত পাঠিয়ে দেওয়া হচ্ছে এবং সবাইকে সরকারি নির্দেশনা ও স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলার জন্য আহ্বান জানানো হচ্ছে।

এ বিষয়ে গুরুদাসপুর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মো. মোজাহারুল ইসলাম বলেন, আশপাশের এলাকাসহ সারাদেশের দূর-দুরান্তের মানুষ ঘুরতে আসেন এই চলনবিলে। তবে করোনা পরিস্থিতি মোকাবিলায় এখন ঘরে থাকার কোনো বিকল্প নেই। সরকারি নির্দেশনা অনুযায়ী সব ধরণের জনসমাগম নিষিদ্ধ রয়েছে। এই নির্দেশনা অমান্য করে কেউ যেন ভিড় করতে না পারে তার জন্য চলনবিলের বিলসা এলাকার প্রবেশপথে তিনটি চেকপোস্ট স্থাপন করা হয়েছে এবং চলনবিল এলাকায় পুলিশ সদস্য মোতায়েন করা হয়েছে।ঈদ উপলক্ষে আমাদের এ চেকপোস্ট অব্যাহত থাকবে।

Advertisement
পূর্ববর্তী নিবন্ধবড়াইগ্রামে ধান মাড়াই করা মেশিনের নিচে পড়ে স্কুল ছাত্র নিহত
পরবর্তী নিবন্ধরেদোয়ানুল হক রাহী’র আজ জন্মদিন, নাটোরকন্ঠ পরিবারের শুভেচ্ছা

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে