গুরুদাসপুরে চুরির অপবাদে নৈশপ্রহরীকে হেনস্থা করার অভিযোগ

0
625
School

স্টাফ রিপোর্টার সন্দীপ কুমার গুরুদাসপুর:

নাটোরের গুরুদাসপুর উপজেলার পোয়ালশুরা পাটপাড়া উচ্চ বিদ্যালয়ের এই চুরির ঘটনাটি ঘটেছে। যেখানে প্রধান শিক্ষকের চাচাতো ভাই পিয়ন সুলতান ও তার সহযোগী শ্রী মিঠু বিদ্যালয়ের স্যামসাং ব্যান্ডের একটি ৩২ ইঞ্চি এলইডি টেলিভিশন চুরি করেছেন বিষয়টি ওপেন সিক্রেট। অথচ চুরির অপবাদ দিয়ে ওই বিদ্যালয়ের নৈশপ্রহরী আবু তালেবের (৫৫) কাছ থেকে জরিমানা আদায় করেছেন প্রধান শিক্ষক আব্দুল আলিম। পাটপাড়া গ্রামের আব্দুল আলিম ওই বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন। একই বিদ্যালয়ে প্রায় ৩২ বছর ধরে নৈশপ্রহরী পদে চাকরি করছেন আবু তালেব। তবে বিদ্যালয় থেকে টেলিভিশন চুরি যাওয়ার ব্যপারে বিদ্যালয়ের পক্ষ থেকে থানায় কোন অভিযোগ করা হয়নি।

এঘটনায় সবশেষ রোববার (১৭ মে) বিদ্যালয় পরিচালনা কমিটির সভাপতি আব্দুল মতিন, প্রধান শিক্ষক আব্দুল আলিম, স্থানীয় ডা. নিখিল, আব্দুস সামাদ ও মন্তাজসহ গন্যমান্য ব্যক্তি নিয়ে বিদ্যলয়েই বৈঠক দেওয়া হয়ে ছিল। বৈঠকে বিষয়টির সুরাহা হয়নি। সুলতান ও তার সহযোগী মিঠুর বাড়ি বিদ্যালয়ের পাশর্বর্তি পাটপাড়া গ্রামে।

এদিকে নৈশপ্রহরী আবু তালেব বাদি হয়ে সুলতান ও মিঠুকে অভিযুক্ত করে সোমবার দুপুরে গুরুদাসপুর সিংড়া সার্কেলের সহকারি পুলিশ সুপারের কাছে একটি লিখিত অভিযোগ দিয়েছেন। তিনি আরো বলেন- প্রকৃত শনাক্ত করতে তিনি পুলিশের কাছে লিখিত অভিযোগ দিয়েছেন। অভিযোগের পর থেকেই বিষয়টি নিয়ে প্রভাবশালী প্রধান শিক্ষক আব্দুল আলিমের স্বজনরা অভিযোগ তুলে নিতে তাকে বিভিন্নভাবে হুমকি দিচ্ছেন।

এদিকে ঘটনার প্রত্যক্ষদর্শী ধারাবারিষা ইউপির সাবেক সদস্য বিউটি বেগম বলেন- গত ২১ এপ্রিল দুপুর ১টার দিকে বিদ্যালয়ের স্ট্যাফ রুমের পিছনে জানালা ভেঙ্গে টেলিভিনটি নিয়ে পালাচ্ছিলেন ওই বিদ্যালয়ের পিয়ন সুলতান। তাকে সহযোগিতা করছিলেন একই গ্রামের মিঠু। টেলিভিশন চুরির বিষয়টি ওই ইউপি সদস্য স্থানীয় বেশ কয়েকজনকে দেখান। অথচ ওই চুরির বিষয়টি নিরিহ নৈশপ্রহরীর ওপর জোরপূর্বক চাপানো হয়েছে।

এঘটনায় পিয়ন সুলতান ও তার সহযোগি শ্রী মিঠুর ফোন বন্ধ থাকায় তাদের কোন বক্তব্য পাওয়া যায়নি। বিদ্যালয় পরিচালনা কমিটির সভাপতি আব্দুল মতিন বলেন- বিষয়টি তিনি ক্ষতিয়ে দেখছেন। অন্যকেউ টেলিভিশন চুরি করে নৈশপ্রহরীর ওপরে দোষ চাপাচ্ছেন কিনা তা দেখা হচ্ছে।

সিংড়া-গুরুদাসপুর সার্কেলের সহকারি পুলিশ সুপার মো. জামিল আখতার অভিযোগ প্রাপ্তির বিষয়টি নিশ্চিত করে মোবাইল ফোনে বলেন- গুরুদাসপুরের নৈশপ্রহরী তার কাছে একটি লিখিত অবিযোগ দিয়েছেন। বিষয়টি নিয়ে তদন্ত সাপেক্ষে আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়া হবে

Advertisement
পূর্ববর্তী নিবন্ধসিংড়া চৌগ্রামে কাজলাহার আশ্রায়ন কেন্দ্রে বিদ্যুৎ বঞ্চিত ত্রিশ বাড়ি আলোকিত
পরবর্তী নিবন্ধবড়াইগ্রামে করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত পুলিশ সদস্যদের পাশে জেলা প্রশাসক ও পুলিশ সুপার

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে