নাটোরে নিজদলের কর্মীদের মারপিট, পরকীয়াসহ নানা অভিযোগ আ’লীগনেতা লিটনের বিরুদ্ধে

0
236

নিজদলের কর্মীদের মারপিট, হুমকি ও পরকীয়া প্রেমসহ নানা অভিযোগ আ’নেতা লিটনের বিরুদ্ধে

নাটোর কন্ঠ:
নাটোরের বড় হরিশপুরের ২নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক লিটন হোসেন বিরুদ্ধে নিজদলের কর্মীদের মারপিট, সন্ত্রাসী বাহিনি লালন, পরকীয়া প্রেম, যখন তখন দেখে নেবার হুমকি,প্রভাবশালী নেতাদের নাম ভাঙ্গিয়ে নিজেকে জাহির করা ও মাদক সর্ম্পক্ততার অভিযোগ রয়েছে। এরই ধারাবাহিকতায় বুধবার বিকালে
বড়হরিশপুরে পূর্ব শত্রুতার জেরে লিটন আলী ও সহযোগিদের বিরুদ্ধে প্রতিবেশী ইমান আলী ও তার পরিবারের অন্যান্য সদস্যদের কুপিয়ে আহত করার অভিযোগ পাওয়া গেছে। ইমান আলী একই এলাকার বাচ্চু মিয়ার ছেলে। এই ঘটনায় বৃহস্পতিবার সকালে সদর থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে।
মামলার এজাহার সূত্রে জানা যায়, সদর উপজেলার বড় হরিশপুর এলাকায় পূর্ব শত্রুতার জের ধরে লিটল আলী ও তার সমর্থকরা দেশীয় অস্ত্রসহ প্রতিবেশী রুবেল হোসেনের বাড়ী গিয়ে রুবেলের উদেশ্যে অকথ্য ভাষা গালাগালাজ করতে থাকে। এসময় লিটন ও তার সমর্থকরা রুবেলকে মরাপিট করার সময় রুবেলকে বাঁচাতে এগিয়ে আসে তার ভাই ইমান আলী ও তার মা মোছাঃ মেহের বেগম। এসময় লিটনের নির্দেশে তার সমর্থকরা ইমান আলীকে দেশীয় অস্ত্র দিয়ে কুপিয়ে এবং মেহের বেগমকে পিটিয়ে গুরুতর আহত করে। এসময় ভুক্তভোগীদের আর্তচিৎকারে আশপাশের লোকজন এগিয়ে এলে প্রতিপক্ষরা ইমান হোসেনের কাছে থাকা নগদ ৩০ হাজার টাকা
এবং তার মায়ের ২৭ হাজার টাকা সমমূল্যের একটি স্বর্ণের চেন ছিনিয়ে নিয়ে যায় বলে অভিযোগে বলা হয়। পরে স্থানীয়রা ইমান হোসেনকে উদ্ধার করে সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। বর্তমানে ইমান হোসেন হাসপাতালে চিকিৎসাধিন আছেন।
তার মাথায় গুরুতর জখম হয়েছে। এঘটনায় রুবেল হোসেন বাদী হয়ে সদর থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করেছেন।
ভূক্তভোগী রুবেল হোসেন অভিযোগ করে জানান, লিটন হোসেন বিভিন্ন সময় তাকে অনৈতিক কাজের সাথে সম্পৃক্ত করার প্রস্তাব দিত। কিন্তু তাতে রাজি না হওয়ায় লিটন তার ও পরিবারের উপর হামলা চালিয়েছে। এছাড়া লিটল মাদক গ্রহণসহ
নারী কেলেঙ্কারী ঘটনার সাথেও জড়িত বলে জানান রুবেল। সম্প্রতি দত্তপাড়া এলাকায় মিঠু ড্রাইভারের স্ত্রী সুখজানের সাথে অনৈতিক সম্পর্ক গড়ে তাদের ১০ বছরের সংসার ভাঙ্গার অভিযোগ আছে লিটনের বিরুদ্ধে। সম্প্রতি পরকীয়া
প্রেমিকাকে লিটনের গান শোনানোর একটি ভিডিও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল হলে তা ব্যাপক আলোচিত হয়। তার বিরুদ্ধে প্রতিটা বিচার শালিসে টাকার বিনিময়ে রায় ঘুরিয়ে দেবার অভিযোগ দীর্ঘদিনের।
তবে সকল অভিযোগ অস্বীকার করে অভিযুক্ত লিটন হোসেন জানান, রুবেলদের সাথে সামান্য ধাক্কাধাক্কি হয়েছে। আর সুখজানের সাথে তার অনৈতিক সম্পর্ক নেই। তাদের স্বামী স্ত্রীর সমস্যা হলে তিনি উপস্থিত থেকে ঝামেলা মিটিয়ে দিয়েছেন।
নাটোর সদর থানার ওসি (অপারেশন) আবু বকর সিদ্দিক জানান, এব্যাপারে থানায় অভিযোগ দায়ের হয়েছে। অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

Advertisement
পূর্ববর্তী নিবন্ধবড়াইগ্রামে প্রবাসীর স্ত্রীকে ধর্ষণের অভিযোগে আওয়ামীলীগ নেতা আটক
পরবর্তী নিবন্ধসমাজ বাঁচাও সবাই মিলে -আজিজা রুপা‘এর কবিতা

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে