নাটোর থেকে টিকিট না পেয়ে যাত্রী উঠতে পারেনি ট্রেনে !

0
462
Nabiur Rahaman Piplu

নবিউর রহমান পিপলু : উত্তারাঞ্চল থেকে নাটোর হয়ে ঢাকাগামী দুটি ট্রেন রোববার থেকে সীমিত পরিসরে চলাচল শুরু করেছে। সীমিত পরিসরে ট্রেন দুটির চলাচল শুরু হলেও এদিন নাটোর স্টেশন থেকে কোন যাত্রিকে ট্রেনে উঠতে বা নামতে দেখা যায়নি। তবে অনেকেই ট্রেনের জন্য স্টেশনে অপেক্ষা করছিলেন। টিকিট না পাওয়ায় তা যেতে পারেননি। ট্রেন দু’টির একটি পঞ্চগড় এক্সপ্রেস ট্রেন মধ্যবর্তী স্টেশন নাটোরে কোন স্টপেজ নেই। ফলে ট্রেনটি সোমবার সন্ধ্যা ৬টার দিকে থ্রুপাস করে নাটোর স্টেশন।

অপর ট্রেন লালমনি এক্সপ্রেস ট্রেনটি লালমনির হাট থেকে রোববার দুপুর ২টা ৪৬ মিনিটের সময় নাটোর স্টেশনে এসে দাঁড়ায়। স্টেশনে ট্রেন দাঁড়ানোর সাথে সাথে গার্ড ও এ্যাটেনডেন্স সহ ৩ জন করে নিরাপত্তা কর্মী ট্রেনের বগির গেটে এসে দাঁড়িয়ে পড়েন। এসময় কোন যাত্রিকে উঠতে বা নামতে দেখা যায়নি। প্রতিটি কক্ষে ৬০ জন করে বসার পুর্বের ব্যবস্থা থাকলেও ছিলেন ৩০ জন করে। ট্রেনটি ৩ মিনিট পর ঢাকার উদ্দেশ্যে ছেড়ে যায়। স্টেশন কর্তৃপক্ষ জানান, এই ট্রেনের জন্য ১৩ টি আসন বরাদ্দ ছিল, যা অনলাইনে বিক্রিও হয়েছে। কিন্তু ট্রেনটি নাটোর প্লাফরমে থামার পর কোন যাত্রিকে উঠতে দেখা যায়নি। নাটোরের জন্য বরাদ্দকৃত কক্ষের আসনগুলিও শুন্য ছিলনা।

এদিকে সীমিত পরিসরে ট্রেন চলাচল শুরুর ঘোষনার পর থেকে নাটোর স্টেশন পরিস্কার পরিচ্ছন্ন করা সহ স্বাস্থ্যবিধি মেনে যাত্রিদের ট্রেনে ওঠা নামা করার ব্যবস্থা করা হয়েছে। ট্রেন চালুর ঘোষনার পর যাত্রিদের অনেকেই গন্তব্যে যাওয়ার জন্য স্টেশনে টিকিট নিতে আসেন। কিন্তু অনলাইনে টিকিট কাটার নিয়ম বেধে দেওয়ায় যাত্রিদের ফিরে যেতে হচ্ছে। এদিকে অনলাইন সম্পর্কে ধারনা না থাকায় অনেকে যাত্রিকে দুর্ভোগের শিকার হতে হয়।

সোমবার দুপুরের পর জিরো পয়েন্ট থেকে ছেড়ে আসা ঢাকাগামী আন্তুনগর দুটি ট্রেন নাটোর স্টেশনে আসে। এর একটি পঞ্চগড় এক্সপ্রেস ট্রেন। যেটা নাটোর স্টেশনে স্টপেজ নেই। অপরটি লালমনি এক্সপ্রেস ট্রেন। এই দুটি ট্রেন যাতায়াত করবে বলে জানিয়েছেন স্টেশন কর্তৃপক্ষ। এদিকে ট্রেন ছাড়ার খবরে অনেকেই স্টেশনে আসেন টিকিট কাটার জন্য। কিন্তু কাউন্টার থেকে কোন টিকিট সরবরাহ না করায় দুর্ভোগে পড়তে হয় বেশ কিছু যাত্রিকে।

নাটোর রেলওয়ে স্টেশনের মাষ্টার অশোক কুমার চক্রবতী, এই স্টেশন থেকে প্রতিটি ট্রেনে ২৫ থেকে ৩০টি করে টিকিট বরাদ্দ থাকলেও বর্তমানে অর্ধেক টিকিট ছাড়া হয়েছে।সোমবার থেকে দু’টি করে ট্রেন উত্তরাঞ্চল থেকে নাটোর হয়ে ঢাকায় চলাচল শুরু হয়েছে। এসব ট্রেনের টিকিট অনলাইনের মাধ্যমে সংগ্রহ করতে হবে যাত্রিদের। একারণে কাউন্টারে কোন টিকিট দেয়া হচ্ছেনা।

যারা টিকিটের জন্য স্টেশনে এসেছিলেন তাদেরকে অনলাইনে টিকিট কাটার বিষয়টি বুঝিয়ে বলা হয়েছে। লালমনি এক্সপ্রেস ট্রেনটি যথাসময়ে নাটোর স্টেশনে এসে দাঁড়ায়। ট্রেনটিতে স্বাস্থ্যবিধি মেনে যাত্রিদের বসার ব্যবস্থা করা হয়েছে। অনলাইনে টিকিট নেয়ায় পুর্বের স্টেশন এলাকার যাত্রি সাধারনরা হয়ত টিকিটগুলো অনলাইনের মাধ্যমে নিয়েছেন। একারনে নাটোরের যাত্রিরা যাওয়ার সুযোগ পাননি।

Advertisement
উৎসNabiur Rahaman Piplu
পূর্ববর্তী নিবন্ধনাটোরে ধর্ষনের ভিডিও ইন্টারনেটে ছড়িয়ে দেয়ার ভয় দেখিয়ে গৃহবধুকে দিনের পর দিন ধর্ষণ
পরবর্তী নিবন্ধআমার রাজ্যে তুমি নেই -কবি ফাহমিদা ইয়াসমিন‘এর কবিতা

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে