“না-লেখা চিঠি, তোমাকে” – মাসউদ আহমাদ 

0
383
মাসুদ

না-লেখা চিঠি, তোমাকে- মাসউদ আহমাদ 

বেঁচে থাকাতেই আনন্দ জেনেও মন কেমন করে। জীবনে এত আনন্দ-আয়োজন ও কোলাহল, তবুও মন উচাটন। সত্য, বেঁচে থাকাতেই সুখ। আর সাফল্য। যদিও এখানে দিনযাপনের গ্লানি আছে, দীর্ঘশ্বাস আছে। ব্যর্থতাও কিছু কম নয়। তবুও নিজেকে সুখী মানুষ ভাবতে ভালোলাগে। জ্ঞানত, কখনো কারো পাকা ধানে মই দেইনি। বাড়া ভাতে ছাইও নয়। নিজের জীবনটাই যাপন করে চলি নিঃশব্দে, হয়ত কোলাহলে, প্রতিদিন।
এখনো দিনশেষে যা-কিছু সরল সুন্দর সত্য বলে মনে হয়, মেনে নিই মাথা নুইয়ে। মেনে নিতে দ্বিধা নেই কোনো। ছিলও না। কারণ আমি জানি, মানুষই মানুষকে এগিয়ে দেয়, তুলে ধরে। মানুষ সংবেদনশীল, তাই সে শিল্পীহৃদয় পায়।
আবার দুঃখ পাই, মানুষের বদলে যাওয়ায়। এখন এটাও জেনে গেছি, রাত যেমন বদল হয় বাড়িও বদল হয়, এমনকি মানুষও। ক্ষমতা ও রাত মানুষকে অচেনা মুখোশ পরায়। কেন? জানি না।
সমাজ কত এগিয়ে গেল, করোতলে মহাদেশ তড়পায় এখন; অথচ কোনো এক অলৌকিক কারণে মানুষ কেবল পিছিয়ে থাকে, দিনের পর দিন; মনে ও মানবিকতায়। সভ্যতা এগিয়েছে কল্পনার ঘোড়ায় চেপে আর মানুষের মনের বিভা ও ভাপ থেমে যায় কেঁপে কেঁপে। এমনও হয়? জানি না।
মানুষ বড় কাঁদছে? কাঁদছে নাকি?
জানি না। জানতে ইচ্ছে করে।

ভালো থেকো, বন্ধু; বন্ধুর বন্ধু হে প্রিয়তম আমার।

Advertisement
পূর্ববর্তী নিবন্ধ“আঁকবুকি অন‍্যমনে”- শর্মিষ্ঠা চ্যাটার্জী বড়ালের কবিতা
পরবর্তী নিবন্ধ“বিচ্ছেদ আয়ত্বের অতীত”- ওয়াহিদ জালালের কবিতা

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে