বাগাতিপাড়ায় টিসিবি’র পণ্য বিক্রয়ে অনিয়মের অভিযোগ

0
630
Bagatipara

সেলিম রেজা. বাগাতিপাড়া সংবাদদাতা:

নাটোরের বাগাতিপাড়ায় করোনা ভাইরাস সংক্রমণ কালে ন্যায্যমূল্যে মানুষের কাছে খাদ্য সামগ্রী বিক্রয় করতে সরকার সারা দেশের ন্যায় নাটোরের বাগাতিপাড়াতেও টিসিবি (ট্রেডিং কর্পরেশন অব বাংলাদেশ) ডিলার নিয়োগ করেছেন। বাগাতিপাড়া উপজেলায় টিসিবির ডিলারের লাইসেন্স পেয়েছেন ‘মেসার্স হাসান ট্রেডার্স’। শুরু থেকেই টিসিবি’র পন্য বিক্রিতে অনিয়মের অভিযোগ উঠেছে ‘মেসার্স হাসান ট্রেডার্স’ এর পরিচালক মেহেদী হাসান এর বিরেুদ্ধে। সরেজমেন দেখা যায়, উপজেলার তমালতলা বাজার সংলগ্ন কৃষি ও কারিগরি কলেজে টিসিবি’র পণ্য বিক্রয় করা হচ্ছে। কিন্তু মানা হচ্ছে না কোন সামাজিক দূরত্ব। আবার যারা পণ্য ক্রয় করতে এসেছেন তাদরে মধ্যে দুই কক্ষে দুই ভাগে বিভিক্ত করা হয়েছে।একটিতে জনসাধারণ ও অপরটিতে ডিলারের আত্মীয়স্বজনদের দেখে দেখে স্লীপ দেয়া হচ্ছে। যারা পরিচিত ও আত্মীয় তাদেরকে সকল ধরণের পণ্য দিলেও অপরিচিতদের যে কোন একটি বা দুটি পণ্য দিয়েই বলা হচ্ছে একজনের ১/২ টির বেশী নিতে পারবেননা।এমন অনিয়ম দেখে সাংবাদিকগণ ডিলারের সাথে কথা বলতে চাইলেও তিনি পাত্তা দেননি।

কোন ট্যাগ অফিসার এসেছিলেন কিনা এমন প্রশ্নে ‘মেসার্স হাসান ট্রেডার্স’ এর মারিক মেহেদী হাসান বলেন, আপনারা খুজে নেনে তিনি হয়তো আশেপাশে আছেন। কে ট্যাগ অফিসার হিসেব আছেন তার মোবাইল নম্বর আছে কিনা জানতে চাইলে ডিলার মেহেদী হাসান সাংবাদিকদের উপরে বিরক্তি প্রকাশ করেন বলেন এখন ঝামেলা করবেন না আপনারা খুজে দেখন তিনি কোথায় আছে।

‘মেসার্স হাসান ট্রেডার্স’ টিসিবি’র পণ্য বিক্রিতে এমন অনিয়মের বিষয়ে উপজেলা নির্বাহী অফিসার প্রিয়াঙ্কা দেবী পালের কাছে জানতে চাইলেও তিনি সঠিক উত্তর নো দিয়ে এড়িয়ে গিয়েছেন। দায়িত্বরত ট্যাগ অফিসার কে রয়েছেন তার ফোন নম্বর সহ নাম ও পদবী বাগাতিপাড়া উপজেলা তথ্য বাতায়নে থাকার কথা থাকলেও পাওয়া যায়নি। গত ৩০/০৪/২০২০ইং তারিখ পর্য়ন্ত তালিকা দেয়া রয়েছে। ট্যাগ অফিসারের তালিকা সাম্প্রতিকীকরণ না থাকায় ইউএনও এর নিকট সাংবাদিকগণ জানতে চেয়েও ব্যর্থ হয়েছেন।

এ ব্যাপারে উপজেলা নির্বাহী অফিসার প্রিয়াঙ্কা দেবী পাল বলেন, আমি এখন আপনাদের জানাতে পারছি না। ডিলারের সাথে কথা বলে ট্যাগ অফিসারের নাম ও মোবাইল নম্বর জেনে নেন। পণ্য না পেয়ে বাগাতিপাড়া ইউনিয়নের আবুল হোসেন ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেন, আমারাতো সাহায্য নিতে আসি নাই। সরকারি সুবিধার অংশ হিসেবে ন্যয্য মূল্যে পণ্য ক্রয় করতে এসেছি। কিন্ত এখানে দীর্ঘক্ষণ দাড়িয়ে থেকেও আমারা অনেকেই পণ্য পাচ্ছিনা আবার যারা ডিলারের পরিচিত তারা যোগাযোগা করে ঠিকই সকল পণ্য নিয়ে যাচ্ছে। তাই কসরকারের কাছে দাবি এমন ডিলারের লা্িসেন্স বাতিল করে পূনরায় নতুনভাবে ডিলার নিয়োগ দিয়ে সচ্ছতা ও জবাবদিহিতার মাধ্যেমে টিসিবি এর পণ্য বিক্রয় করা উচিত।

Advertisement
পূর্ববর্তী নিবন্ধমওলা বাবার আখড়াবাড়ি -মাহবুব রুবেল
পরবর্তী নিবন্ধরোযার উদ্দেশ্য কি কেবল না খেয়ে থাকা! – নাহিদুল ইসলাম

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে