“বিচ্ছেদ আয়ত্বের অতীত”- ওয়াহিদ জালালের কবিতা

0
492
ওয়াহিদ জালাল এনকে

বিচ্ছেদ আয়ত্বের অতীত || ওয়াহিদ জালাল

চোখ বেয়ে নদী নামলো
যেনো বিরান নগরীর ছাইয়ের পাশে
পড়ে থাকা এক প্রেমপত্র ভিজছে বেদনার ঘামে,
মনের মাঠ পাথরের মতো শক্ত,
পিপাসায় নিজেকে ছিড়ে খাচ্ছে
আগুনের ভিতর থেকে লোভের আঙ্গুল।

আমাকে কি বোঝাতে চাও?
আমি জানি,চাঁদের নিজস্ব হৃদয় নেই,
সে শূন্যতাকে আপন করে
মেঘের আড়ালে এক রাখালের মর্মব্যাথা,
আমি জানি,আঘাতের লক্ষ্য অনন্তকাল
বুক বরাবর তীব্র থেকে তীব্রতর হয়ে থাকে,
তখন মনের বাজারে ঘুমায় আশার আড়ৎ।

কতগুলো বিচ্ছিন্ন টুকরোর মতো
বাতাসের পীত তার ঐতিহ্য সৃষ্টির জন্যে
মাটির চুলে বিলি কাটছে,
আমার কলিজায় মোচড় দিয়ে উঠে নোঙ্গর
দরিয়া হয়ে ঢেউ খেলে রক্তের পাখনা,
কোন অক্ষরের ভিতর নিজের নামটি নেই দেখে
মরে যায় সময়ের নিজস্ব গতি দৃষ্টির ভিতর।

তোমাকে টের পাই,
এক সময় আকুতির গজল থেকে মানুষের
নাম একটি আয়াত হয়ে যায়,
আরেকটি দিন সম্পূর্ণ নির্বাসিত হয় অকূলে,
সব আশা ছেড়ে দিয়ে তোমার আশায় পিরীত
গভীর আলিঙ্গনে বিচ্ছেদ আয়ত্বের অতীত।

২৩. ০১.২০২০
রেইনহিল, ইংল্যান্ড

Advertisement
পূর্ববর্তী নিবন্ধ“না-লেখা চিঠি, তোমাকে” – মাসউদ আহমাদ 
পরবর্তী নিবন্ধ“পুলিশ কখনো মিথ্যা বলে না”- অতীশ পাল 

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে