বিদগ্ধ আড়াল- কবি বেনজির শিকদারের কবিতা

0
449
www.natorekantho.com

বিদগ্ধ আড়াল•••
বেনজির শিকদার

সেই কবে ছুঁয়েছিলে আঙুল—

সমূলে বাড়তে বাড়তে সে এখন মস্ত এক বটবৃক্ষ!
ফুলেদের নৃত্য, পাখিদের কুচকাওয়াজ, পাতার মর্মর
আর স্বপ্নখচিত যৌবনে যেন ছুঁয়ে যাবে আকাশ!

একবার ধরেছিলে হাত—
আঙুল জলে মিশে হয়ে গেছে সুবিস্তৃত নদী!
আন্দিজ পর্বতমালার মিশমিচূড়া হতে
নেমে আসা আমাজন ছাড়িয়ে—
মিসিসিপি, নীলনদ, ইয়াংজি, হোয়াংহো, যমুনা;
দূর কে কাছে করতে বেড়েছে অসংখ্য শেকড়!

ডুবতে চাইনি বলেই—
চোখের দিকে তাকাতেই সরিয়ে নিয়েছিলাম দৃষ্টি।
নীলগিরিতে লোভ আমার বরাবরই!
প্রভাতে মেঘের ভেলা, সূর্যোদয়ে আলোর খেলা।
গোধূলিতে সূর্যাস্ত কিংবা জ্যোৎস্নারাতের নেশাতুর চারপাশ!
পাহাড় ধ্বসও-তো বোবা কান্নায় ব্যথিত-শিলার দীর্ঘশ্বাস!

সেই যে কদমতলার মেলা!
ফেরার পথে বলেছিলে একদিন—
আমার বুকের মাঝে, সকাল সাঁঝে, কার নাম বাজে?
চৌমাথাটা পেরিয়ে হনহন করে হেঁটে গিয়েছিলাম।
স্মৃতিভারাতুর চাঁদ আর অজস্র কর্পূরমিশ্রিত রাত জানে
থাকতো যদি ভেনিসের মতো রক্ষাকবচ?
গন্ডোলা ভাসাতাম— পৃথিবীর ওই তিনভাগ জলের উপর।

ভরসন্ধ্যা, খোলাচুল, শরীরের ঘ্রাণ আর
দেবদারু মায়ায়, ছুঁয়েছিলে একদিন চিবুকের তিল!
ধ্বংসস্তূপের বিদ্ধস্ততায় নির্লিপ্ত একখণ্ড পাথরের মতো বসেছিলাম;
কবরের নিস্তব্ধতায় শ্রাবণের ধারার মতো বেজেছিলো খুব;
সাতমহলা দুঃখের নদী-ঝরা বকুলের ব্যকুলতায়
বড় আলগোছে সামিয়ানাহীন—
হৃদয়তন্ত্রীতে নেচেছিলো বিদগ্ধ ক্ষতের অদৃশ্য আড়াল!

•••বিদগ্ধ আড়াল•••
বেনজির শিকদার
মে ২০২০, নিউ ইয়র্ক

Advertisement
পূর্ববর্তী নিবন্ধমেঘের কাছে লেখা, বনশ্রী বড়ুয়া’র চিঠি
পরবর্তী নিবন্ধউম্মে নাযহা’ এর জন্মদিনে, নাটোর কণ্ঠ পরিবারের শুভেচ্ছা

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে