“বৃক্ষমঙ্গল”- এম আসলাম লিটনের কবিতা

0
416
লিটন-এনকে

বৃক্ষমঙ্গল
এম আসলাম লিটন

যতবার বৃক্ষের কাছে যাই, মাথা নত হয়ে যায়
ধুলোয় মিশে যায় অহম, সব আলো ম্লান হয়ে যায়।
প্রকৃতির স্রেষ্ঠ শিল্পকর্ম বৃক্ষ; সেরা ভাষ্কর্য
শেকড়ের বিন্যাস থেকে কাণ্ড-ডাল-পাতা
পাতার শিরা-উপশিরায়; ফুল কিবা ফলে
নন্দন খেলা করে অপার মহীমায়
বিমোহিত হই; মগজে নেমে আসে মহাকালের প্রশান্তি
ধমনিতে বয়ে যায় স্বর্গীয় স্রোত; কলস্বরা ঝরনা।

যখনই বৃক্ষের সামনে দাঁড়াই, শিরদাঁড়া নুহ্য হয়ে আসে
বিচলিত মন ত্রস্ত হাতড়ায় আপন ভাঁড়ার
কী আছে আমার? কী আছে সঞ্চয়?
কতটা দিয়েছি আমি প্রকৃতির তহবিলে
কতটা ধারণ করি প্রকৃতির দায়?
বৃক্ষের দান; যদি পাহাড় সমান হয়
পারিনি এখনো তার অনুসম হ’তে।

যতবার বৃক্ষের মুখোমুখি দাঁড়াই
মনে হয়, আমি তো নই- আমি তো নই
প্রকৃতির সেরা জীব বৃক্ষই!

Advertisement
পূর্ববর্তী নিবন্ধ“চরিত্রাভিনেতা” – আসাদজামানের কবিতা
পরবর্তী নিবন্ধশুভেচ্ছা ও অভিনন্দন

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে