“শূন্যকথন “- সুবর্ণা গোস্বামী’র কবিতা

0
352
সুবর্ণা এনকে

শূন্যকথন
সুবর্ণা গোস্বামী

আমি বোধয় কুয়াশা গোত্রের। পাখিরা ভাই বোন আর মেরু হয়ত পিতা। প্রতিটি বরফ পার হবার পরেই ঘিরে নেয় সাদা। অন্ধ যন্ত্রণার একেকটি দীর্ঘ ধারাপাত পড়ে যেতে হয় ততদিন যতদিন না পাঠযোগ্য শূন্যতা একটি উষ্ণ বিকেল তৈরি করে।
সেখানেই জানতে পারি একটি পানপাত্রই বস্তুতঃ আমার মা।ধারণ করে আছেন বিষ, আকন্ঠ ঝর্ণা। আমি পান করি।করতেই থাকি –
একেকটি আঙ্গুল সমুদ্রে তলিয়ে যেতে থাকে
দুটো চোখ মিশে যায় অনন্ত নক্ষত্রে
প্রত্যেক রক্তফোঁটা ফুল হয়ে ফুটতে থাকে মায়াবৃক্ষের ডালে।
আমি নিঃশেষে মিশে যাওয়ার আগে লিখতে চেয়েছিলাম
‘পৃথিবী হলো শূন্যের জারজ সন্তান।’
লেখা হলো না।

ঢাকা।

Advertisement
পূর্ববর্তী নিবন্ধ“সংক্রান্তি “- লিপি চৌধুরী’র কবিতা
পরবর্তী নিবন্ধ“প্রিন্সেপ ঘাট” -লুৎফুন নাহার তিথি‘র ভ্রমণ কাহিনী

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে