নাটোরের চারটি আসনে জামানত হারালেন ২৪ প্রার্থী

0
221

নাটোর কন্ঠ : দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে নাটোরের ৪টি সংসদীয় আসনে ৩২ প্রতিদ্বন্দ্বি প্রাথীর মধ্যে ২৪ প্রার্থী জামানত হারিয়েছেন। রোববার অনুষ্ঠিত নির্বাচনে মোট ভোটের ৮ শতাংশ ভোট না পাওয়ায় এসব প্রার্থীর জামানত বাজেয়াপ্ত হবে।

জামানত বাজেয়াপ্ত হওয়া প্রার্থীদের মধ্যে ৫৮ সংসদীয় আসান নাটোর-১ এ প্রতিদ্বন্দ্বি ৯ জন প্রার্থীর মধ্যে ৭জন,সংসদীয় আসন ৫৯ নং নাটোর-২ আসনে পাঁচ প্রার্থীর মধ্যে ৩ জন,

৬০ নং সংসদীয় আসন নাটোর-৩ এ প্রতিদ্বন্দ্বি ৯ প্রার্থীর মধ্যে ৭ জন এবং ৬১ নং সংসদীয় আসন নাটোর-৪ এ প্রতিদ্বন্দ্বি ৯ প্রার্থীর মধ্যে ৭জনসহ মোট ২৪ প্রার্থী জামানত হারিয়েছেন। জামানত হারানো প্রার্থীদের মধ্যে রয়েছেন-

জাতীয় পার্টি, ওয়াকার্স পাটি,বাংলাদেশ কংগ্রেস, জাসদ, জেপি,বিকল্প ধারা, তৃনমুল বিএনপি, বিএসপি, বিটিএফ ও আওয়ামীলীগের স্বতন্ত্র প্রার্থী রয়েছেন। প্রার্থীদের মধ্যে নাটোর-৪ আসনের জাপা প্রার্থী নির্বাচন থেকে সরে যাওয়ার ঘোষনা দেন।

জেলা নির্বাচন অফিস সুত্রে জানা যায়, ৫৮ নং নাটোর-১ (লালপুর-বাগাতিপাড়া) আসনে মোট ৯ জন প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেন। এদের মধ্যে ৭ জনের জামানত বাজেয়াপ্ত হয়। এ আসনে মোট ভোটার সংখ্যা ছিল ৩ লাখ ৪৯ হাজার ৩৬৯ জন।

এরমধ্যে প্রদত্ত ভোটের সংখ্যা ১ লাখ ৭০ হাজার ২৪৯টি। বাতিল ভোট ৫ হাজার ৪০৭টি। মোট বৈধ ভোটের সংখ্যা ১ লাখ ৬৪ হাজার ৮৪২টি। সে অনুযায়ী ৮ শতাংশ ভোট হবে ২০হাজার ৬০৫ ভোট ।

এ আসনে ১ হাজার ৯৯৬ ভোটের ব্যবধানে নৌকাকে হারিয়ে ৭৭ হাজার ৯৪৩ ভোট পেয়ে বেসরকারিভাবে বিজয়ী বিজয়ী হন ঈগল প্রতিকের স্বতন্ত্র প্রার্থী আবুল কালাম আজাদ। তাঁর নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বি বর্তমান বর্তমান এমপি নৌকার প্রার্থী শহিদুল ইসলাম বকুল পরাজিত হন। তার পদত্ত ভোট ৭৫ হাজর ৯৪৭ ।

এই আসনে জামানত বাজেয়াপ্ত প্রার্থীরা হলেন, বাংলাদেশ ওয়ার্কার্স পার্টির নাটোর জেলা সভাপতি, ইব্রাহীম খলিল (হাতুড়ি) পেয়েছেন ৩ হাজার ৪৩০ ভোট, আওয়ামী লীগের স্বতন্ত্র প্রার্থী লে. কর্নেল (অব.) রমজান আলী সরকার (কাঁচি) পেয়েছেন ২ হাজার ৬১৪ ভোট,

জাতীয় পার্টির ব্যারিস্টার মো. আশিক হোসেন (লাঙ্গল) পেয়েছেন ২ হাজার ৩৬ ভোট, আওয়ামী লীগের স্বতন্ত্র প্রার্থী কাজল রায় (ঢেঁকি) পেয়েছেন ১ হাজার ১৩৬ ভোট, জাসদের (ইনু) ইঞ্জিনিয়ার মো. মোয়াজ্জেম-

হোসেন (মশাল) পেয়েছেন ৮১৭ ভোট, স্বতন্ত্র জামাল উদ্দিন ফারুক (ট্রাক) পেয়েছেন ৪৬৮ ভোট এবং বাংলাদেশ সুপ্রিম পার্টির (বিএসপি) মো. লিয়াকত আলী (একতারা) পেয়েছেন ৪৫১ ভোট।

৫৯ নাটোর-২ (নাটোর সদর-নলডাঙ্গা) আসনে মোট ৫ জন প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করে জামানত খুইয়েছেন ৩ জন। এ আসনে মোট ভোটার সংখ্যা ৩ লাখ ৮৪ হাজার ৪৯ জন। এরমধ্যে প্রদত্ত ভোট ১ লাখ ৮৭ হাজার ৪১টি, বাতিল ভোট ৫ হাজার ৩২১টি। মোট বৈধ ভোটের সংখ্যা ১ লাখ ৮১ হাজার ৭২০টি। প্রদত্ত ভোটের ৮ শতাংশ ভোট হবে ২২,৭১৬ ভোট।

আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী নৌকার প্রার্থী বর্তমান এমপি শফিকুল ইসলাম শিমুল ১ লাখ ১৬ হাজার ৪৩২ ভোট পেয়ে বিজয়ী হন। তাঁর নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বি আওয়ামী লীগের স্বতন্ত্র প্রার্থী আহাদ আলী সরকার (ট্রাক) পেয়েছেন ৬১ হাজার ১৫৪ ভোট।

জামানত বাজেয়াপ্ত প্রার্থীরা হলেন, জাতীয় পাটির মো. নুরন্নবী মৃধা (লাঙ্গল) পেয়েছে ২ হাজার ৭১৫ ভোট, বাংলাদেশ কংগ্রেস পার্টির মোহাম্মদ বজলুর রশিদ (ডাব) পেয়েছেন ৮৩৯ ভোট এবং জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দলের (জাসদ) শরিফুল ইসলাম (মশাল) পেয়েছেন ৫৮০ ভোট।

৬০ নং সংসদীয় নাটোর-৩ (সিংড়া) আসনে মোট প্রার্থী ছিলেন ৯ জন। জামানত হারিয়েছেন ৭ জন। এরা হলেন জাতীয় পার্টির আনিছুর রহমান (লাঙ্গল)। তিনি পেয়েছেন ৭৭৯ ভোট, বিকল্পধারা বাংলাদেশের আনোয়ার হোসেন (কুলা)

পেয়েছেন ২৩০ ভোট; তৃণমূল বিএনপির মো. আবুল কালাম আজাদ (সোনালী আঁশ) পেয়েছেন ২১৯ ভোট, স্বতন্ত্র প্রার্থী আব্দুল্লাহ আল মামুন (ট্রাক) পেয়েছেন ১২৪ ভোট, বাংলাদেশ কংগ্রেসের আমিরুল ইসলাম (ডাব) পেয়েছেন-

২০৮ ভোট; তরিকত ফেডারেশনের (বিটিএফ) আলতাফ হোসেন (ফুলের মালা) পেয়েছেন ৬৫ ভোট এবং বাংলাদেশ ওয়ার্কার্স পার্টির মো. মিজানুর রহমান মিজান (হাতুরি) পেয়েছেন ৬৩৮ ভোট। এ আসনে মোট ভোটার সংখ্যা ৩ লাখ ৮ হাজার ৭৯৪ জন।

এরমধ্যে প্রদত্ত ভোট ১ লাখ ৮৪ হাজার ৭০৫টি, বাতিল ভোট ৩ হাজার ৯৫টি। মোট বৈধ ভোটের সংখ্যা ১ লাখ ৮১ হাজার ৬১০টি। প্রদত্ত ভোটের ৮ শতাংশ ভোট হবে ৪৬ হাজার ১৭৬টি।

আওয়ামী লীগ মনোনীত নৌকা প্রতিকে আইসিটি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমদে পলক (নৌকা) ১ লাখ ৩৫ হাজার ৬৮৮ ভোট পেয়ে বিজয়ী হয়েছেন। তাঁর নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বি আওয়ামী লীগের স্বতন্ত্র প্রার্থী শফিকুল ইসলাম শফিক (ঈগল) পেয়েছেন ৪৩ হাজার ৬৫৯ ভোট।

৬১ নং সংসদীয় নাটোর-৪ (বড়াইগ্রাম-গুরুদাসপুর) আসনে মোট প্রার্থী ছিলেন ৯ জন। এ আসনে মোট ভোটার সংখ্যা ৪ লাখ ২০ হাজার ৪৭০ জন। এরমধ্যে প্রদত্ত ভোট ২ লাখ ১৩ হাজার ২৭৩টি, বাতিল ভোট ৩ হাজার ৯১৩টি। মোট বৈধ ভোটের সংখ্যা অনুযায়ী ৮ শতাংশ ভোট হবে ২৬ ,১৭১ ভোট।

আওয়ামী লীগের মনোনীত নৌকা প্রতিকের প্রার্থী বর্তমান এমপি ডাঃ সিদ্দিকুর রহমান পাটোয়ারী ১ লাখ ১৩ হাজার ৫৮২ ভোট পেয়ে বিজয়ী হয়েছেন। তাঁর নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বি স্বতন্ত্র প্রার্থী আসিফ আব্দুল্লাহ বিন কুদ্দুস শোভন (ট্রাক) পেয়েছেন ৯০ হাজার ৭৪৮ ভোট।

জামানত বাজেয়াপ্ত হওয়া প্রার্থীরা হলেন, জাতীয় পার্টির আলাউদ্দিন মৃধা (লাঙ্গল) পেয়েছেন ২৮৬ ভোট, তৃণমূল বিএনপির আব্দুল খালেক সরকার (সোনালী আঁশ) পেয়েছেন ৭২ ভোট, জেপির এস এম সেলিম রেজা (বাইসাইকেল) পেয়েছেন ২৫৩ ভোট,

বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী আন্দোলনের (বিএনএম) গাজী আবু সায়েম রতন (নোঙ্গর) পেয়েছেন ১৪০ ভোট, বাংলাদেশ কংগ্রেসের শান্তি রিবারু (ডাব) পেয়েছেন ২৭৩ ভোট, স্বতন্ত্র প্রার্থী জাহিদুল ইসলাম (ঈগল) পেয়েছেন ১ হাজার ২৯১ ভোট ও স্বতন্ত্র প্রার্থী সুজন আহমেদ (দোলনা) পেয়েছেন ২ হাজার ৭১৫ ভোট।

Advertisement
পূর্ববর্তী নিবন্ধপরাজিত নৌকার প্রার্থীর কর্মীদের বাড়িঘরে ভাং. চু.র-লু.ট.পা.টের অভিযোগ 
পরবর্তী নিবন্ধবাগাতিপাড়ায় সাংবাদিককে মা.র.পি.টের অভিযোগে থানায় মামলা

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে