“হে সময়… বেহুলা হও” কবি গৌতম চট্টোপাধ্যায‘এর কবিতা

0
907
Goutam Chattopadhyay

“হে সময়… বেহুলা হও”

কবি গৌতম চট্টোপাধ্যায

ক্ষয়িষ্ণু সময়ে ততোধিক অপসৃয়মান
প্রেমের মাঝে বেহুলা কি আজো বেঁচে আছে!!!
স্নেহ ,মমতা, ভালবাসা আর আন্তরিকতায়
যে গোবর লেপে রোজ!
কতজন রাখে হিসেব?
কতজন রাখে খোঁজ!!!
রাখে না কেউ…
দেখেনা কেউ…
আঁকেনা কেউ….!!!
পথের পাঁচালী পড়া আর
সত্যজিতের সাদা -কালো ছবি দেখে
মন ভারাক্রান্ত হওয়া আমি
নিজের জীবন -দেয়ালে
খসে যাওয়া ঘুঁটেতে
আগুন জ্বালানোর আগে
জ্বলতে দেখি পেটের খিদে!!!
জ্বলতে দেখি জাফরাবাদ, মৌজপুর, চাঁদপুর,করাবলনগর!
সত্য সেলুকাস কি বিচিত্র এই দেশ!!!
মানুষ মরে! মানবিকতা মরে!
তোমরা শীততাপ নিয়ন্ত্রিত ঘরে বসে গোনো
মারা গেল কতজন! ঝলসেছে কতজন!
কে হিন্দু! কে মুসলমান!
কেন রাখো এত খোঁজ!
মানুষ খোঁজো…, মানুষ!
হে আমার দেশ! এ তোমার দেশ!
প্রেম দাও,স্নেহ দাও, সহিষ্ণুতা দাও,
দাও একটি সুস্থ মানুষ!
জীবন তো নয় কোন
ঝুঝ লিয়াং এর রঙিন ফানুস!!!
উড়ে যাওয়া ময়নার রঙ দেখে ভয় পাওয়া আমি
সবুজ সাপেও ভয় পায় বড়!
সবুজে সবুজে আবৃত সুন্দরবনের
বাঘের ভয় হয় বড্ড!
আমি কোন সরস্বতী বা শিব আঁকবো না!
কোন ময়না বা কাকাতুয়া ? তাও না!
তার লাল ঠোঁটে আমি দেখছি
কত শত মানুষের রক্ত- লিপিস্টিক!!!
হে দেশ আমার, মানুষ করো আমায়
এ নারকীয়-জীবন আমার,
কেন লাগে ধিক্!!!
হে দেশ.. বেহুলা হও…
সময়ের- লাশকে ভেলা বেয়ে নিয়ে চলো
কোন এক স্বর্গলোকে…….!!!!

Advertisement
পূর্ববর্তী নিবন্ধশব্দের সম্ভ্রম নিলাম হয় রোজ/ কাজী আতিকের কবিতা
পরবর্তী নিবন্ধ“মরীচিকা” -শাপলা জাকিয়া‘র ভৌতিক গল্প – পর্ব-০১

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে