মেধাবী আদিবাসী শিউলি বাইসাইকেল চালিয়ে এখন স্কুলে যাবে!

0
777
Adivasi-girl-Sheuli

কালিদাস রায়, নাটোরকন্ঠ
প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের দেওয়া বাইসাইকেল পেয়ে এখন ভীষণ খুশি আদিবাসী মেয়ে শিউলি পাহান। সাধারণ ছুটি শেষ হলেই সে এখন বাইসাইকেলে চড়ে স্কুলে যাবে। ঠিক এই দিনটার জন্যই সে বেশ কিছুদিন ধরে অপেক্ষা করছিল। অনেক দিনের স্বপ্ন পূরণ হয়েছে তার। শিউলি নতুন বাইসাইকেল পাওয়ায় সরকারের প্রতি কৃতঙ্গতা জানিয়েছে তার নানা-নানী।
শিউলি নাটোর সদর উপজেলার দরাপপুর গ্রামে নানার বাড়ীতে থেকে লেখাপড়া করে মেধাবী দরিদ্র এই মুন্ডা সম্প্রদায়ের আদিবাসী মেয়েটি। বাড়ীর পাশেই দরাপপুর উচ্চ বিদ্যালয়ে অষ্টম শ্রেণীতে লেখাপড়া করছে সে। এর আগে শেখেরহাট সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় থেকে পিএসসি পরীক্ষায় জিপিএ ৫অর্জন করে মেধার স্বাক্ষর রাখে সে। এছাড়া দরাপপুর উচ্চবিদ্যালয়ে সপ্তম শ্রেনী থেকে এবার সে ৪.৫৫ জিপিএ অর্জন করে অষ্টম শ্রেনীতে উন্নীত হয়।

শিউলির বাবা -মা নওগাঁর বদলগাছির বাঁশপাড়া গ্রামে বাস করেন। দিনমজুরী করে কোন রকমে সংসার চালান। অভাবের সংসারে শিউলির আরো দুই ভাইবোন রয়েছে। যারকারণে মাত্র ছয় বছর বয়সে শিউলিকে তার নানার বাড়ী পাঠিয়ে দেওয়া হয়। এদিকে নানার বাড়ীতেও অভাবের সংসার। কিন্তু এত অভাবের মধ্যেও শিউলি হার মানেনি। অদম্য স্পৃহা নিয়ে লেখাপড়া করে যাচ্ছে। লেখাপড়া করার পাশাপাশি সে সংসারে সমস্ত কাজে সহযোগীতা করে। অনেক সময় সংসারের কাজের চাপে সে লেখাপড়া করার সময় পায় না। অর্থাভাবে প্রাইভেট পড়তে পারেনা। তবুও তার পরীক্ষার ফলাফল রীতিমত সবাই অবাক হয় বার বার। মেধাবী শিউলিকে তার ভবিষ্যৎ স্বপ্ন কি প্রশ্ন করলে জানায়, সে ভবিষ্যতে শিক্ষক হতে চায়। শিক্ষকতা পেশার মাধ্যমে সমাজের অবহেলিত মানুষের মাঝে শিক্ষার আলো ছড়িয়ে দিতে চায়।

শিউলি জানায়, অনেকদিন আগেই জাতীয় আদিবাসী পরিষদের সাধারণ সম্পাদক কালিদাস রায় আমার রেজাল্ট শুনে খুশি হয়ে আমাকে একটি বাইসাইকেলে ব্যবস্থা করে দিতে চেয়েছিলেন। তার জন্যই আমি আজ বাইসাইকেল পেয়েছি। এজন্য প্রধানমন্ত্রী ও তাকে কৃতঙ্গতা জানাই। আমি এখন থেকে বাইসাইকেলে চড়েই স্কুলে যেতে পারব। বিষয়টি সত্যিই আমার জন্য অনেক আনন্দের।

জাতীয় আদিবাসী পরিষদের সাধারণ সম্পাদক কালিদাস রায় জানান, আদিবাসী সমাজে শিউলির মত অনেক মেয়ে রয়েছে যারা একটু সহযোগীতা ও নির্দেশনা পেলে আদিবাসী সমাজকে অনেক দুর এগিয়ে নিয়ে যেতে পারে। আর আমরা সেই কাজটি করার চেষ্টা করছি। শিউলিরা এগিয়ে এটাই প্রত্যাশা সবসময়।

উল্লেখ্য, বৃহস্পতিবার প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের তহবিল থেকে সমতলের আদিবাসীদের জন্য বিশেষ এলাকার উন্নয়ন প্রকল্প শীর্ষক কর্মসূচীর আওতায় নাটোর সদর উপজেলায় আদিবাসী শিক্ষার্থীদের মাঝে শিক্ষা উপবৃত্তি, উপকরণ ও বাইসাইকেল বিতরণ করেন নাটোর-২ আসনের সংসদ সদস্য শফিকুল ইসলাম শিমুল।

Advertisement
পূর্ববর্তী নিবন্ধকরোনাকে জয় করার ঘরোয়া টিপস – ড. বিজন কুমার শীলের
পরবর্তী নিবন্ধপ্রধানমন্ত্রীর অনুদানে বেঁচে থাকা দরিদ্র শিক্ষার্থী কোবরা’র এসএসসিতে গোল্ডেন জিপিএ ৫ অর্জন

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে